সেরা ১০ টি ফ্রি কম্পিউটার ভিডিও এডিটিং সফটয়্যার (2021)

আমরা প্রায় ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার নিয়ে সমস্যায থাকি। যেমন কোন ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার টি ভালো কিন্তু ফ্রি, আবার কোন ভিডিও এডিটর অনেক দ্রুত ভিডিও রেন্ডারিং করে। এরকম হাজারো প্রশ্ন রয়েছে।

আজকে এই কনটেন্ট এর মধ্যে এমন সেরা ১০ টি ফ্রি কম্পিউটার ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার শেয়ার করবো। যেগুলো ফ্রি এবং টাকা দিয়েও কিনত পাওয়া যায়। আবার কোনো কোনো সফটওয়্যার একদম বিনামূল্যে।

তবে এর আগে আপনার নিজের কাছে নিজে প্রশ্ন করুন। আসলেই আপনি কেমন ভিডিও এডিটিং করতে চান। এখন হয়ত আপনি বলবেন এটা আবার কেমন প্রশ্ন।


১০ টি ফ্রি কম্পিউটার ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার ২০২১


আচ্ছা দাড়ান, আপনি যখন ভিডিও এডিটর খুজছেন তাহলে অবশ্যই Adobe কোম্পানির নাম শুনে থাকবেন। ভিডিও বলেন আরে অডিও আর পিকচার এডিটিং এর কথায় বলেন পুরো মার্কেট তাদের হাতে।

আপনি যদি প্রফেশনাল ভিডিও এডিটিং করতে চান, তাহলে তাদের সফটওয়্যার ছাড়া কখনই সম্ভব না। হ্যা আবার সম্ভব হতেও পারে, কারণ তাদের অল্টারনেটিভ অনেক সফটওয়্যার আছে।

এডোবি কোম্পানির সব সফটওয়্যারগুলো টাকা দিয়ে কিনে নিতে হয়ে। ঠিক এই কারনের জন্য অনেকেই তাদের সফটওয়্যার ব্যবহার করেন না। আর করলেও তা ইলেগাল ভাবে করে থাকেন।

আর আপনারা যাতে টাকা খরচ না করেই ভালো মানের  ভিডিও এডিটিং করতে পারেন তার জন্য নিচে কিছ সফটওয়্যার এর নাম দেওয়া হলো Best Free Video Editing Software for Windows

 

Free Video Editor Software for windows:

 

1.         Windows Movie Maker from Microsoft

Movie Maker একটি ফ্রি কম্পিউটার ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার। অন্যান্য ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার এর মত, এই সফটওয়্যার দিয়েও ভিডিও জোড়া লাগাতে পারবেন, ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক যোগ করতে পারবেন, টেক্সট ক্যাপশন দিতে পারবেন এছাড়াও আরো কাজ করতে পারবেন যেমন ছবি ফিল্টার করতে পারবেন।

Movie Maker এই সফটওয়্যার টির দুইটি ভারসন রয়েছে। একটি হলো টাকা দিয়ে কিনে নিতে হয় এবং আরেকটি ফ্রি ডাউনলোড করে ভিডিও এডিটিং করতে পারবেন।

এই সফটওয়্যার দিয়ে বিভিন্ন প্রেসেনটেশন ভিডিও বানাতে পারবেন। যেমন পরিবারে সকল ডকুমেন্ট এক যায়গায যোগ করে সহজে প্রেসেন্টশন করতে পারবেন।

Movie Maker এর ফিউচারঃ

  • ·         ভিডিও গুলো কাটতে পারবেন
  • ·         ভিডিও বাকাতে পারবেন
  • ·         অনেকগুলো ভিডিও এক যায়গায় জোড়া লাগাতে পারবেন
  • ·         ভিডিওতে লেখা এবং ক্রেডিট দিতে পারবেন
  • ·         যেকোনো ছবি কে ফিল্টার করতে পারবনে
  • ·         অডিও সাউন্ড কম-বেশি করে এডযাস্ট করতে পারবেন
  • ·         যেকোনো ফরম্যাটের ফাইল ইমপোর্ট (Import) করতে পারবেন। যেমন MP3, mp4, mkv, wmv, avi, jpg, png, GIF এছাড়াও আরো অনেক ফাইল যোগ করতে পারবেন
  • ·         ভিডিও এর উপর নিজের ভয়েস দেওয়ার সুবিধা রয়েছে।

 

 

2.       OpenShot

OpenShot একটি সাধারণ এবং খুবই শক্তিশালী ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার। এই সফটওয়্যারটির ইন্টারফেস খুবই সাধারণ এবং খুব সহজ।

OpenShot ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যারটি একদম বিনামূল্যে, টাকা দিয়ে কিনতে হয় না। সফটওয়্যারটি Windows ছাড়াও Linux এবং Mac এ ব্যবহার করা যায়।

 

OpenShot এর ফিউচারঃ

  • ·         টাইমলাইনে অনেক গুলো ভিডিও, অডিও এবং অন্যান্য ফাইল যোগ করার সুযোগ পাচ্ছেন
  • ·         যেকোনো ভিডিও ক্লিপ, কাটতে পারবেন এবং অন্যান্য ক্লিপ যোগ করতে পারবেন
  • ·         Keyframe এর ব্যবহার করে সুন্দর সুন্দর এনিমেশন তৈরি করতে পারবেন
  • ·         3D এনিমেশন টাইটেইল তৈরি করতে পারবেন
  • ·         Slow Motion এবং Time Effects ব্যবহার করে ভিডিও কে আরো সুন্দর করে ফুটিযে তোলার সুযোগ পাচ্ছেন
  • ·         Audio Waveforms দেখতে পারবেন
  • ·         খুব সাধারন দেখতে, যেকেউ সহজে ভিডিও এডিট করতে পারবে
  • ·         প্রায় ৭০ টির বেশি ভাষা, OpenShot এ সাপোর্ট করে।

 

 

3.       VSDC Video Editor - Free Movie Editing Software

VSDC ভিডিও এডিটর একটি খুবই জনপ্রিয় সফটওয়্যার। প্রায় ৫ মিলিযন মানুষ এই সফটওয়্যারটি ব্যবহার করে। আপনার যদি টাকা দিয়ে সফটওয়্যার কিনে ভিডিও এডিট করার সামর্থ না থাকে। তাহলে এই সফটওয়্যারটি হতে পারে আপনার কাছে সেরা ভিডিও এডিটর।

VSDC সফটওয়্যারটি ব্যবহার করে, Screen Recording, voice over, audio filter এইসব টুলস ব্যবহার করে আপনার ভিডিও এডিটিং কে আরো প্রানবন্ত করতে পারবেন।

VSDC এর ফিউচারগুলোঃ

  • ·         VSDC সফটওয়্যারটি ব্যবহার করার জন্য, আলাদ কোনো high-level কনফিগারেশন এর প্রয়োজন পড়ে না
  • ·         Chorma key ব্যবহার করে সহজেই Green Screen ডিলিট করতে পারবেন
  • ·         সব ধরনের ফাইলে ফরম্যাট সাপোর্ট করে
  • ·         ভিডিও Zoom, 360 ভিডিও এডিটিং এবং কালার ম্যানেজমেন্ট করতে পারবেন
  • ·         অনেকগুলো পপুলার ভিডিও ইফেক্ট, এবং ভিডিও ট্রানজেসন করতে পারবেন
  • ·         যেকোনো বস্তুকে Motion Tracking এবং mask করতে পারবেন
  • ·         যেকোনো কালারের উপর Choram Key ব্যবহার করে ডিলিট করতে পারবেন


VideoPad Video Editor

VideoPad একটি ফ্রি Windows ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার। এই সফটওয়্যার টি যেকোনো Windows Version এ খুব সহজে ব্যবহার করা যায়। এই সফটওয়্যারটি ব্যবহার করে প্রফেশনাল মানের ভিডিও এডিট করা যায়।

অন্যান্য ভিডিও এডিটর এর মত, এই সফটওয়্যার এ সব ধরনের সাধারন এডিটগুলো করা যায়। এছাড়াও নিচে আরো ডিটেইল ভবে উল্লেখ করা হলো।

VideoPad এর ফিউচারগুলোঃ

  • ·         VideoPad Software টির লে-আউট এবং ইন্টারফেস সাধারন হওয়ায় খুব সহজে ব্যবহার করা যায়
  • ·         ড্রাগ এবং ড্রপ করে যেকোনো ক্লিপ টাইমলাইন নিয়ে আসতে পারবেন
  • ·         ফ্রিতে প্রফেশনাল মানের ইন্ট্র এবং টেমপ্লেট পাবেন
  • ·         যেকোনো ভিডিও তে খুব সহজেই ক্যাপশন এবং ক্রেডিট দিতে পারবেন
  • ·         Green Screen ডিলিট করার জন্য Choram Key ফিউচারটি রয়েছে
  • ·         ভিডিওর ডিউরোশন কম-বেশি করে প্রফেশনাল আউটপুট তৈরি করতে পারবেন
  • ·         ভিডিও আলাদা অডিও যোগ করে প্রফেশনাল এর মত মিক্সিং করতে পারবেন
  • ·         ভিডিও split, trim, crop এ ধরনের কাজ গুলো ভালোভাবে করতে পারবেন
  • ·         Gif ভিডিও খুব সহজে এডিটিং করা সুযোগ থাকছে
  • ·         বিভিং কোযালিটির ভিডিও Export সেভ করতে পারবেন

 

 

5.       Kdenlive - Free and Open Source Video Editing Software

Kdenlive একটি Open Source ফ্রি ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার। Open Source বলতে, এই সফটওয়্যারটিকে যেকোনো কাজে ব্যবহার করতে পারবেন। আবারা আপনি চাইলে, তাদের কোড গুলো এডিট করে Customization করে আবার নতুন রুপ দিতে পারবেন। কিন্তু কেউ কিছু বলবে না, কারণ সফটওয়্যারটি Open Source.

KdenLive এ কিছু আলাদা ফিউচার রয়েছে। যেমন একই স্ক্রিনে বিভিন্ন ট্রাকের ভিডিও এবং অডিও করতে পারবেন।

যেকোন ভিডিও এবং অডিও Format এর ফাইল KdenLive সফটওয়্যারটিতে এডিটিং করতে পারবেন।

Kdenlive দিচ্ছে, পুরো সফটওয়্যারটির ইন্টারফেস পরিবর্তন করার সুযোগ। তাই আপনার পছন্দ মত লে-আউট গুলো সাজাতে পারবেন।

KdenLive এর ফিউচারগুলোঃ

  • ·         ভিডিও এবং অডিও এর Timeline Preview করতে পারবেন
  • ·         Timelive Preview বন্ধ এবং চালূ করার ফ্যাংশন রয়েছে
  • ·         বিভিন্ন ধরনের থিম রয়েছে। যেমন Dark,  Gray Dark, Light ইত্যাদি
  • ·         Keyframe এর ব্যবহার করে বিভিন্ন Effect যোগ করতে পারবেন
  • ·         Keyframe এর Direction ইচ্ছে মত কাস্টমাইজ করতে পারবেন
  • ·         Kdenlive এর অনলাইন স্টোর থেকে প্রয়োজনীয় ফাইল ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন
  • ·         কোনো কারণে ফাইল সেভ না করলে বা বিদ্যুৎ চলে গেলে অটোমেটিক ফাইল সেভ হয়ে যায়। পরবর্তীতে রিকভার করে এডিটিং করতে পারবেন
  • ·         অডিও ফাইল এডিটিং করার জন্য, আলাদা ভাবে অনেক ফিউচার দেওয়া হয়েছে
  • ·         অনেক গুলো ফাইল রয়েছে, ভিডিও Transition করার জন্য
  • ·         ইচ্ছেমত Title যোগ করে, এডিট করতে পারবেন

 

6.       Blender - Free & Open Source & Professional Animated Film Toolset

Blender একটি ফ্রি 3D এবং Video Editing সফটওয়্যার। Blender অনেক কাজ করা যায়। যেমনঃ মডেল তৈরি করা, এনিমেশন এবং রিংগিং, ভিপিক্স (VPX), পাইপলাইন, সিমুলেশন এছাড়াও অনেক ফিউচার ফাংশন রয়েছে এই সফটওয়্যারটির মধ্যে।

আবার আপনি চাইলে পুরো একটি কার্টুন ভিডিও শুধুমাত্র এই সফটওয়্যারটির ব্যবহার করে করতে পারবেন।

Blender ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যারটির ব্যবহার করে যেসব কাজ করতে পারবেনঃ

  • ·         ভিডিও কাটতে পারবেন
  • ·         কঠিন ভিডিও এডিটিং গুলো এই সফটওয়্যাটির মাধ্যমে সহজে করতে পারবেন
  • ·         ভিডিও মাস্ক (Mask) করতে পারবেন
  • ·         ভিডিও কালার গ্রেডিং করতে পারবেন
  • ·         অডিও মিক্সিং করতে পারবেন
  • ·         ভিডিও এবং অডিও স্প্রিড কন্ট্রোল করতে পারবেন
  • ·         Keyframe এর ব্যবহার খুব ভালোভাবে করতে পারবেন
  • ·         লেয়ার এডযাস্ট এবং ট্রানসিসন করতে পারবেন

 

7.        HitFilm Express - Popular Free Video and Movie Editor & Compositor

HitFilm একটি প্রফেশনার ফ্রি ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার। HitFlim দিচ্ছে অসাধারন VPX এবং কালার কারেকশন করার বাড়তি সুবিধা।

HitFilm ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যারটি নতুন দের জন্য সেরা একটি পছন্দ হতে পারে। যেসব মানুষদের টাকা দিয়ে সফটওয়্যার কিনে এডিটিং করতে পারে না। তাদের জন্য সেরা একটি সফটওয়্যার।

সফটওয়্যারটি অনেক দ্রুত কাজ করে।

HitFilm এর ফিউচারগুলোঃ

  • ·         2D এবং 3D কম্পজিশন করতে পারবেন
  • ·         প্রায় ৪১০ টির বেশি প্রিসেটস রয়েছে
  • ·         আনলিমিটেড ট্রাকস এবং ট্রানজিসন যোগ করতে পারবেন
  • ·         Hitfilm এর রয়েছে নিজস্ব ফ্রি ভিডিও টিউটোরিয়াল
  • ·         তাদের নিজস্ব কমিউনিটি রয়েছে

 

8.       Lightworks - Powerful Free Video Editor for Professionals

LightWorks একটি ফ্রি ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার। LightWorks এর ব্যবহার করে, আপনি অসাধারন অসাধারণ ভিডিও তৈরি করতে পারবেন।

Lighworks নিয়মিত তাদের সফটওয়্যার আপডেট করে থাকে। তারা তাদের সফটওয়্যারে প্রায় নতুন নতুন ফিউচার যোগ করতেই থাকে। এজন্য তাদের সফটওয়্যারটি অনেক মানসম্মত এবং অনেক দ্রুত কাজ করার ক্ষমতা রাখে।

LightWorks এর ফিউচারগুলোঃ

  • ·         খুব সাধারন টাইমলাইন
  • ·         একদম সাধারণ ইন্টারফেস, যেকেউ এই সফটওয়্যারটি খুব সহজে ব্যবহার করতে পারবে
  • ·         বিভিন্ন টাইপের ফাইল ফরমাট সাপোর্ট করে
  • ·         4K ভিডিও এডিটিং এবং সেভ করতে পারবেন
  • ·         সত্যিকারের FX ভিডিও এবং অডিও তে যোগ করতে পারবেন
  • ·         ইচ্ছেমত কালার গ্রেডিং করতে পারবেন
  • ·         ৩২ বিট এবং ৬৪ বিট দুটোতেই সাপোর্ট করে
  • ·         তাদের নিজস্ব স্টোক ভিডিও এবং অডিও রয়েছে

 

9.       Shotcut

লো-কনফিগারেশন কম্পিউটার ব্যবহারকারীদের জন্য খুবই জনপ্রিয় একটি ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার হলো Shotcut.

আপনার যদি ভালো কোনো কম্পিউটার প্রসেসর না থাকে, তাহলে এই সফটওয়্যারটি আপনার জন্য। ShotCut দিচ্ছে 4k ভিডিও এডিটিং এর সুবিধা। এছাড়াও বিভিন্ন ফরম্যাটের ফাইল সাপোর্ট করে। যেমনঃ Mp3, Mp4, Avi, BMP, GIF, JPEG, PNG, SVG ইতাদি।

বিভিন্ন ধরনের ফ্রেমের ভিডিও তৈরি করতে পারবেন।

ShotCut এর ফিউচারগুলোঃ

  • ·         ভিডিও বাকাতে পারবেন
  • ·         Eye Dropper টুলস এর ব্যবহার করে কালার ব্যালেন্সিং করতে পারবেন
  • ·         ভিডিও ফিল্টার করতে পারবেন
  • ·         ট্রাক ব্লেন্ডিং এ বিভিন্ন মোড সিলেক্ট করতে পারবেন
  • ·         ৩৬০ডিগ্রি ভিডিও এডিটিং করতে পারবেন
  • ·         যেকোন ক্লিপ কে রিভার্স বা পেছন থেকে প্লে করতে পারবেন
  • ·         ফোল্ডার থেকে যেকোনো ফাইল ড্রাগ এবং ড্রপ করে টাইমলাইনে নিয়ে আসতে পারবেন

 

10.    DaVinci Resolve

Davinci Resolve একটি প্রফেশনাল ভিডিও এবং কালার কারেক্টিং ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার। DaVinci Resolve পৃথিবীর সেরা এডিটিং সমাধান। এই এডিটর দিচ্ছে কালার কারকশন, ভিজুযাল ইফেক্টস, মোশন গ্রাফিক্স এবং অডিও প্রোডাকশন করা এবং এই সকল কাজ করার একটি মাত্র সমাধান তা হলো DaVinci Resolve.

Davinci Resolve ভিডিও মাধ্যমে যেসব কাজ করতে পারবেন। তা হলো ভিডিও-অডিও কাটা, ভিডিও কেটে আলাদা করা, ইফেক্টস যোগ করা, প্রয়োজন মত কালার এডযাস্টমেন্ট করা এছাড়াও আরো অনেক কাজ করতে পারবেন।

DaVinci Resolve এর ফিউচারগুলোঃ

  • ·         ড্রাগ এবং ড্রপ করে ভিডিও টাইমলাইনে আনতে  পারবেন
  • ·         টাইমলাইন এর ফাইল গুলো কাটা এবং আলাদা করার সুবিধা পাচ্ছেন
  • ·         বিভিন্ন ধরনের টাইটেল যোগ করতে পারবেন
  • ·         প্রয়োজন মত ইফেক্টস যোগ করতে পারবেন
  • ·         সরাসরি ইফেক্টস প্লে করে দেখতে পারবেন
  • ·         Hollywod Movie এর মত কালার কারেকশন করতে পারবেন
  • ·         ভিডিও তে আদ্রতা কমাতে এবং বাড়াতে পারবেন
  • ·         সিনেমা তৈরির জন্য যেসব ভিজুযাল ইফেক্টস গুলো এখানে পাবেন
  • ·         2d এবং 3d ভিজুযাল ইফেক্টস ব্যবহার করতে পারবেন